উলসুর লেকের তীরে ভেসে উঠল মৃত মাছের সারি

0
51

বেঙ্গালুরু: লেকের পাড় নাকি মৃত মাছের সমাধিস্থল! সোমবার সকালে বেঙ্গালুরুর উলসুর লেকের ধারে গিয়ে এমনটাই মনে হচ্ছে। আর হবে না-ই বা কেন! কয়েক হাজার মাছের নিথর দেহ পড়ে রয়েছে লেকের পাড়ে। তার থেকে দুর্গন্ধও বেরোচ্ছে। যদিও এতগুলি মাছের কীভাবে একসঙ্গে মৃত্যু হল তা স্পষ্ট নয়।

উলসুর লেক মধ্য বেঙ্গালুরুর অন্যতম বিখ্যাত স্থান। প্রায় ১০৮ একর জায়গা জুড়ে অবস্থিত এই উলসুর লেকটিতে মূলত মাছ চাষ হয়। এছাড়া বোটিংয়ের জন্যও এটি বিখ্যাত। কিন্তু কীভাবে লেকের প্রায় সমস্ত মাছের মৃত্যু হল তা স্পষ্ট নয়। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, এদিন সকালে উলসুর লেকের পাড়ে মৃত মাছের স্তূপ দেখা যায়। ওখানে প্রায় কয়েক হাজার মৃত মাছ পড়ে ছিল। ভোরবেলা আচমকা মৃত মাছের স্তূপ দেখে হতভম্ব হয়ে পড়েন এলাকাবাসী। প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে, লেকের জল নোংরা হওয়ার দরুণই মাছের মৃত্যু হয়েছে। এই অনুমানটি পুরোপুরি ভুলও নয়। কেননা উলসুর লেকটি বর্তমানে কচুরিপানায় আবদ্ধ। বহু বছর এটি পরিষ্কার করা হয়নি। এর জেরে লেকের মাছের মৃত্যু হওয়া অসম্ভবও নয়। পুরো বিষয়টির তদন্ত শুরু হয়েছে। যদিও কর্ণাটকের রাজ্য দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের প্রাক্তন চেয়ারম্যান ভামান আচার্য বলেন, এম জি রোড এবং ইন্দিরা নগরের ব্যবহৃত নোংরা জল উলসুর লেকেই পড়ে। এছাড়া পুরো লেকটি কচুরিপানায় আবদ্ধ। ফলে জল নোংরা হয়ে গিয়ে জলের ভিতরের অক্সিজেন কমে গিয়েছে। এর দরুণ এতগুলি মাছের মৃত্যু হয়েছে। এই ঘটনার দায় বিডব্লিউএসএসবি (বেঙ্গালুরু ওয়াটার সাপ্লাই এবং সিওয়ার্জ বোর্ড)-এর নেওয়া উচিত এবং লেক নর্দমার ময়লা নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করা উচিত বলেও দাবি জানান আচার্য।

উল্লেখ্য, গত বছর বেঙ্গালুরুর ইয়ামলুর লেকে এই একই ঘটনা ঘটেছিল। একদিন ভোরে হঠাৎই মৃত মাছের স্তূপে ভরে গিয়েছিল ইয়ামলুর লেকের তীর। পরে তদন্ত করে জানা যায়, লেকের জল দূষণের জন্যই একসঙ্গে এতগুলি মাছের মৃত্যু হয়েছে।

---